Tajmaul Sk

মহান আল্লাহ পবিত্র কুরআনে ইরশাদ করেন, ------ আর তার চেয়ে কার কথা উত্তম, যে আল্লাহর দিকে দাওয়াত দেয়, সৎকর্ম করে এবং বলে, অবশ্যই আমি মুসলিমদের অন্তর্ভুক্ত’?" [সূরা-হামীম-সাজদাহ-৬৩"] তাবলীগ অর্থ কি? তাবলীগ কিসের করতে হবে? তাবলীগ কিভাবে করতে হবে? ======================== তাবলীগ অর্থ'''''''' "তাবলীগ" অর্থ প্রচার করা, বা বার্তা পৌঁছে দেওয়া। তাবলীগ অর্থ কোনো দল না, যদিও বর্তমানে অনেক মানুষ মন করে তাবলীগ মানে একটা দল। তাবলীগ কিসের করতে হবে'''''''''''' তাবলিগ করতে হবে “কুরআন” ও “সুন্নাহর” (সহীহ হাদীস)। আল্লাহ তাআ'লা বলেছেনঃ "ইয়া আয়্যুহার-রাসুলু বাল্লিগ মা উনযিলা ইলাইকা মির-রাব্বিকা" অর্থঃ হে নবী! আপনি আপনার রব্বের পক্ষ থেকে যা নাযিল করা হয়েছে তা প্রচার করুন। [সূরা- মায়িদাহঃ ৬৭] রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেনঃ "বাল্লিগু আন্নি ওলাও আয়াহ"। [বুখারী-৩৪৬১] অর্থঃ তোমরা আমার পক্ষ থেকে একটা আয়াত হলেও প্রচার করে দাও। রাসুলের উপর নাযিল করা হয়েছে – কুরআন ও সুন্নাহ। সুতরাং একজন মুসলিম শুধু কুরআন ও সুন্নাহর তাবলীগ করতে পারে্। পীর-মুরিদীর ব্যবসা, নিজের তরীকা বা ফেরকা, বুজুর্গদের ভুয়া কিচ্ছা কাহিনী, ঈমান-আকীদা বিধ্বংসী কথা বার্তা ও জাল হাদীস, এইসব সে প্রচার করতে পারেনা। সুফীবাদীদের লেখা ভেজাল আমলের কিতাবের তাবলীগ করতে পারেনা। তাবলীগ কিভাবে করতে হবে''''''''''''''''''' তাবলীগ করতে হলে নিজে জেনে-শুনেই করতে হবে, অজ্ঞতা নিয়ে দাওয়াত দিতে গেলে তাবলীগ হবে, কিন্তু দ্বীনের তাবলীগ হবেনা। শিরক-বিদআ’তের তাবলীগ হবে। "(হে নবী আপনি) বলে দিনঃ এটাই আমার পথ। আমি আল্লাহর দিকে জেনে বুঝে দাওয়াত দেই, আমি এবং আমার অনুসারীরা। আল্লাহ পবিত্র। আর আমি মুশরেকদের অন্তর্ভুক্ত নই।" [সূরা- ইউসুফঃ ১০৮] এই নিয়ম না মানার কারণে অনেক লোক আছে যারা তাবলীগ করার দাবী করে কিন্তু সে আসলে নিজের মনগড়া কাহিনী, জাল হাদীস, ভুয়া আমল, বেদাতী চিন্তা-ভাবনা ও কাজকর্ম প্রচার করে নিজেদের পরকালের ক্ষতি করছে, অন্যদেরকেও পথভ্রষ্ট করছে। আল্লাহ তায়ালা আমাদের যেন সঠিক টা বুঝে আমল করা ও প্রচার করার তাওফীক দান করেন, আমীন।। প্রণেতা by :-তাজমাউল সেখ !!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Skip to toolbar